আইপিএলে অভিষেক সাকিব আল হাসানের

0

 

আলোরপথ ২৪ ডটকম

২০১১ মৌসুমে আইপিএলে সাকিব আল হাসানের অভিষেক । অভিষেকের পরই বাংলাদেশ অলরাউন্ডারের শনৈঃশনৈঃ উন্নতি। ধীরে ধীরে দলের অপরিহার্য অংশ হয়ে উঠেছেন । দলের দুবার শিরোপা জেতার পেছনে রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ অবদান। সাকিবকে এবারও ধরে রেখেছে আইপিএল ফ্রাঞ্চাইজি কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর)।
১৫ ডিসেম্বর শেষ হয়েছে খেলোয়াড়দের চুক্তি বাতিল ও বর্ধিত করার তারিখ। গত মৌসুমের ১২৩ খেলোয়াড় (৭৯ ভারতীয়, ৪৪ বিদেশি) থেকে গিয়েছেন নিজ নিজ দলে। কলকাতা ছেড়ে দিয়েছে দেবব্রত দাস, সায়ান মণ্ডল ও জ্যাক ক্যালিসকে। ক্যালিসের ঘটনা অবশ্য ভিন্ন। কদিন আগে কেকেআর প্রোটিয়া কিংবদন্তি অলরাউন্ডারকে দলের ‘মেন্টর ও ব্যাটিং পরামর্শক’ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে ।
আগের মৌসুমগুলোয় সাকিবের যে পারফরম্যান্স, তাতে কলকাতার তাঁকে ছাড়ার কথা নয় । ২০১১ সালে ৭ ম্যাচে ব্যাট হাতে ২৯ রান করার পাশাপ​াশি বল হাতে নিয়েছিলেন ১১ উইকেট। ২০১২ সালে কলকাতা নাইট রাইডার্সের শিরোপা জয়ের পেছনেও রেখেছিলেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। ৮ ম্যাচে ওভারপ্রতি ৬.৫০ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ১২ উইকেট। আর ব্যাট হাতেও খেলেছিলেন বেশ কয়েকটি সময়োচিত ইনিংস। রান করেছিলেন ৯১।
তবে সাকিব গত আসরে  ছিলেন আরও পরিণত, আরও উজ্জ্বল। ১৩ ম্যাচে করেছেন ২২৭ রান সঙ্গে নিয়েছেন ১১ উইকেট। ব্যাট হাতে খেলেছেন অসাধারণ কয়েকটি ইনিংস। আইপিএল ক্যারিয়ারে সাকিবের ২৮ ম্যাচে রান ৩৪৭ আর ৩৪ উইকেট। ২০১১ আসরে খেলেছিলেন ৭ ম্যাচ, পরের আসরে ৮ ম্যাচ আর সর্বশেষ ২০১৪ মৌসুমে ১৩ ম্যাচ। তিনি দলে কতটা গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে উঠছেন দিনে দিনে ম্যাচ সংখ্যা বৃদ্ধি তারই প্রমাণ।

 

 

Share.

Comments are closed.