ব্রোকারেজ হাউসগুলোকে আইপিও আবেদন গ্রহণের প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ

0

আলোরপথ২৪.কম

ব্রোকারেজ হাউসগুলোকে দ্রুত প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) নতুন কোম্পানির প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিও প্রক্রিয়ার সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য । এ নির্দেশ দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রতিনিধিদলের সঙ্গে গতকাল বুধবার বৈঠককালে দেওয়া হয়।
নিয়মিত মতবিনিময়ের অংশ হিসেবে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় গতকাল দুপুরে রাজধানীর দিলকুশায় অবস্থিত বিএসইসির কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে । এতে সভাপতিত্ব করেন বিএসইসির চেয়ারম্যান এম খায়রুল হোসেন। ডিএসইর ১০ সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন সংস্থাটির চেয়ারম্যান বিচারপতি সিদ্দিকুর রহমান মিয়া।
বিএসইসি জানিয়েছে, আগামী পয়লা এপ্রিল থেকে ব্যাংকের মাধ্যমে আইপিও আবেদনের আর কোনো সুযোগ থাকছে না। ব্যাংকের পরিবর্তে ব্রোকারেজ হাউস ও মার্চেন্ট ব্যাংকের মাধ্যমে আইপিও আবেদন করতে হবে আগ্রহী বিনিয়োগকারীদের। এ কাজটি যথাযথভাবে সম্পন্ন করতে তাই এখন থেকে ব্রোকারেজ হাউসগুলোকে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করার তাগিদ দেওয়া হয়েছে।
জানা গেছে, বৈঠকে শেয়ারবাজারের সাম্প্রতিক পরিস্থিতিসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ ছাড়া ডিএসইর পক্ষ থেকে বেশ কিছু আইনি সংশোধনসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রস্তাব দেওয়া হয়। ডিএসই ব্রোকারেজ হাউসসহ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেড বা সিডিবিএল যে ফি আদায় করে, তা কমানোর সুপারিশ করে । তবে এসব বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।
বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সাইফুর রহমান বলেন, বৈঠকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ডিএসইর পক্ষ থেকে বেশ কিছু সুপারিশ করা হয়েছে। তবে সেগুলোর বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত দেয়নি বিএসইসি। পরবর্তী সময়ে এসব সুপারিশ নিয়ে বিএসইসি আলোচনা করবে।
সাইফুর রহমান আরও জানান, বাজারের সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে ব্রোকারেজ হাউসগুলোকে সক্রিয় থাকার জন্য বিএসইসির পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়েছে।
বৈঠকে বিএসইসির চার কমিশনার, নির্বাহী পরিচালক, ডিএসইর বেশ কয়েকজন পরিচালক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
দেশের শেয়ারবাজারে আজ বৃহস্পতিবার থেকে লেনদেন শুরু হয়েছে ইফাদ অটোস লিমিটেডের। একসঙ্গে দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জে এটির লেনদেন চালু হবে। নতুন কোম্পানি হিসেবে কোম্পানিটি ‘এন’ শ্রেণিভুক্ত থাকবে। গত নভেম্বরে কোম্পানিটি আইপিওতে ২ কোটি সাড়ে ১২ লাখ শেয়ার ছেড়ে বাজার থেকে ৬৩ কোটি ৭৫ লাখ টাকা সংগ্রহ করে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ২০ টাকা অধিমূল্য বা প্রিমিয়াম যোগ করে এর প্রতিটি শেয়ারের বিক্রয়মূল্য ছিল ৩০ টাকা।

 

Share.

Comments are closed.