দেশের মূলধারার বাণিজ্যিক ছবিতে অভিনয় করতে চাই।

0

আলোরপথ২৪.কম

জিরো ডিগ্রী মুক্তি পেয়েছে গতকাল শুক্রবার । ছবিতে দেখা গেল জয়া আহসানকে। তিনি ছবি মুক্তির আগে মাত্র দিন কয়েকের ছুটিতে ঢাকায় এসেছিলেন । এ সপ্তাহেই  ছুটি শেষে উড়াল দেবেন ভারতের উদ্দেশে। কারণ, অনেকটাই ওপার বাংলার চলচ্চিত্রকে ঘিরে জয়ার ইদানীং সময়ের ব্যস্ততা । তিনি  সেই ব্যস্ততার বয়ান করলেন

কেমন কাটছে ঢাকার দিনগুলো?
কয় দিনেই হাঁপিয়ে উঠেছি। জিরো ডিগ্রীর প্রচারে ছুটেই চলছি। গত ৩০ জানুয়ারি ঢাকায় ফিরেছি। এর পরদিন থেকেই শুরু করেছি প্রচারের কাজ। এমনকি প্রচার চলছে ছবি মুক্তির পরেও।
কোন কাজে যোগ দেবেন প্রচার শেষে ?
এরপর শুরু করব ইন্দ্রনীল রায়চৌধুরীর একটি বাঙালি ভূতের গপ্পো ছবির কাজ। এর কিছুদিন পর শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায়ের পরিচালনায় কণ্ঠ ছবির শুটিং শুরু হবে। আর সম্প্রতি তো শেষ করলাম সৃজিতের রাজকাহিনীর শুটিং।
এগুলো সব তো ওপার বাংলার ছবি। এ দেশের নতুন কোনো ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন?
বেশ কিছু ছবি নিয়ে কথা হচ্ছে। কিন্তু ওগুলো এখনো বলার মতো পর্যায়ে যায়নি। তবে পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেমকাহিনী ২ ছবির কিছুটা কাজ বাকি রয়েছে। নতুন দুটো ছবির ফাঁকেই শেষ হয়ে যাবে এর কাজ।
বাংলাদেশের মূলধারার বাণিজ্যিক ছবিতে কাজ করেছেন। আপনাকে কি টালিউডের বাণিজ্যিক ছবিতেও দেখা যাবে?
এখন ইচ্ছে নেই। ওদের দেশে কিন্তু মূলধারার বাণিজ্যিক ছবির চাহিদা কমছে দিন দিন। তাই আমার ওতে আগ্রহ নেই।
কিসে তাহলে আগ্রহ?
একেবারে আর্ট ফিল্মও নয়, আবার মূলধারার বাণিজ্যিক ছবিও নয়। এর মাঝামাঝি থেকে কিছু ছবি এখন তৈরি হচ্ছে টালিউডে। এ ছবিগুলো সেখানে এখন অনেক জনপ্রিয়। আমার পছন্দ সে ধরনের ছবি। তবে হ্যাঁ, মূলধারার বাণিজ্যিক ছবি কিন্তু চলচ্চিত্রশিল্পকে দাঁড় করানোর জন্য অনেক জরুরি। তাই আমি চাই আমার দেশের বাণিজ্যিক ছবিতে বেশি বেশি কাজ করতে। পাশের দেশের চলচ্চিত্রশিল্পের উন্নয়ন নিয়ে আমার ভাবনা নেই। আমার ভাবনা দেশের শিল্পকে সামনে এগিয়ে নেওয়ার। তাই বাইরের বাণিজ্যিক নয়, দেশের মূলধারার বাণিজ্যিক ছবিতে অভিনয় করতে চাই।

Share.

Comments are closed.