রপ্তানিকারকদের ২১ দাবি,চিন্তিত অর্থমন্ত্রী

0

আলোরপথ টোয়েন্টিফোর ডটকমঃ

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সঙ্গে দেখা করে ২১টি দাবি উত্থাপন করেছেন দেশের রপ্তানিকারকেরা। জবাবে বিষয়গুলো ভেবে দেখার কথা বলেছেন‘চিন্তিত’ অর্থমন্ত্রী।
আজ সোমবার অর্থ মন্ত্রণালয়ে রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএর নেতারা মন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে যান। এ সময় রপ্তানিকারকদের পক্ষে অর্থমন্ত্রীর কাছে বিজিএমইএর সভাপতি মো. আতিকুল ইসলাম চলমান হরতাল-অবরোধে ক্ষয়ক্ষতির বিবরণ তুলে ধরেন।
২১টি দাবি তুলে ধরা হয় ‘চলমান সহিংস রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক ও বস্ত্র খাতসহ সব রপ্তানি খাতে সহযোগিতা প্রদানের অনুরোধ’ শীর্ষক এই আয়োজনে ।এসবের মধ্যে আছে—রাজনৈতিক অস্থিরতার সময়কালে নতুন করে কোনো রপ্তানি ঋণ শ্রেণিবিন্যাস না করা, এই সময়ের মধ্যে ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হলে তিন মাসের পরিবর্তে ছয় মাসের মধ্যে ঋণ শ্রেণিবিন্যাস করা, পোশাকসহ সব রপ্তানিকারককে ঋণ পুনঃতফসিলীকরণ করার সুযোগ দেওয়া, রাজনৈতিক পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত পুনঃতফসিলীকৃত ঋণের কিস্তি স্থগিত রাখা, পাঁচ বছরের প্রকল্প ঋণ তিন বছর বাড়িয়ে আট বছরের কিস্তিতে পরিশোধ করার সুযোগ দেওয়া, ৫০০ কোটি বা তার চেয়ে বেশি পরিমাণ ঋণ পুনঃতফসিলের যে সুযোগ জানুয়ারিতে দেওয়া হয়েছে, তা সব রপ্তানিকারকের জন্য প্রযোজ্য করা ইত্যাদি।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এসব দাবি শুনে বলেন, ‘বিদ্যমান অবস্থায় আপনারা সাফার করছেন। তবে রাজনৈতিক এই পরিস্থিতির ইমপ্যাক্ট দুই মাসে ততটা হয়নি। দেখছি কী করা যায়। যে পরিস্থিতি চলছে, আমি খুব চিন্তিত; কত দিন চলবে। এটার একটা শেষ থাকতে হবে। কিন্তু কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে না। এটা বিএনপির ডিউটি, তাদের কোনো ইন্ডিকেশন নেই। দলটি সংসদেও নেই। সংসদে থাকলে একটা ফোরাম থাকে। এটা একটি জাতীয় সমস্যা। আবার জাতীয় সমস্যা বলতেও ভয় করি।’

মন্ত্রী ব্যবসায়ীদের দাবি-দাওয়ার বিষয়ে আরও বলেন, ‘আমি চিন্তায় আছি। আমি বসব আপনাদের সঙ্গে। ব্যবস্থা একটা নেব। কালকে নেব বা পরশু নেব। তবে নেব।’

 

Share.

Comments are closed.