Visit Us On TwitterVisit Us On FacebookVisit Us On GooglePlusVisit Us On PinterestVisit Us On YoutubeVisit Us On Linkedin

দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে বিসিকের সঙ্গে ডিআইইউর চুক্তি

0

আলোরপথ টোয়েন্টিফোর ডটকমঃ

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয় স্বল্প শিক্ষিত যুবক ও যুব মহিলাদের দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে বাংলাদেশ শিল্প ও কুটির শিল্প সংস্থার (বিসিক) সঙ্গে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির (ডিআইইউ)।এই চুক্তির মেয়াদ প্রাথমিকভাবে ১০ বছর।
এ চুক্তি স্বাক্ষর হয় আজ সোমবার দুপুরে রাজধানীর হোটেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ে ।
শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বিসিকের চেয়ারম্যান আহমেদ হোসেন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ।ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আইসিটি বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. আবুল হাশেম ও ডিআইইউর ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ফরহাদ উদ্দীন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।এছাড়া আরও  উপস্থিত ছিলেন ডিআইইউর উপাচার্য প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান, বিসিকের পরিচালক (প্রযুক্তি) আবু তাহের খান প্রমুখ।
প্রফেসর ড. মো. গোলাম রহমান বিসিকের উপ-উপাচার্য জানান, এই চুক্তির মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিসিকের যে ১৫ টি নৈপুণ্য বিকাশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্র রয়েছে, সেখানে প্রচলিত কোর্সগুলোর আধুনিকায়নসহ বিশ্ববাজার নির্ভর নতুন কোর্স প্রণয়ন করা হবে। এ ছাড়া ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি বিষয়ক দক্ষতা উন্নয়নমূলক কারিগরি প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নিয়েছে।
এই চুক্তির ফলে যৌথভাবে কাজ করবে বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় অদক্ষ তরুণদের আন্তর্জাতিক চাকরি বাজারের উপযোগি করে গড়ে তুলতে বিশ্বমান সম্পন্ন কোর্স ম্যাটেরিয়াল, ওয়ার্কশিট, জবশিট ও মডিউল তৈরি ও প্রণয়নে উভয় প্রতিষ্ঠান ।আমাদের দেশেল তরুণ-তরুণীরা চাকরি খুজবে না একাজ সফলভাবে বাস্তবায়ন হলে।তাদের খুজবে চাকরি। কেননা উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে উঠার যথেষ্ট উপাদান ও অনুপ্রেরনা থাকবে প্রতিটি কোর্স মডিউলেই ।
এছাড়াও তিনি জানান, বিদেশি ইনস্টিটিউটের সহায়তায় একাডেমিক ও পেশাগত সমন্বয় বজায় রেখে যুগোপযোগি কোর্সগুলো অফার করার পাশাপাশি তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে বিসিকের পণ্যগুলোর আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশের সুযোগ তৈরির লক্ষ্যে উভয় প্রতিষ্ঠান একসঙ্গে কাজ করবে।
শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, ‘বর্তমানে বিশ্বমানের পণ্য উৎপাদন ছাড়া কোনো শিল্প উদ্যোগ টিকিয়ে রাখা কঠিন। কারণ বিশ্বব্যাপী নতুন প্রযুক্তির আবিষ্কার এবং মুক্ত বাজার অর্থনীতির ফলে এক দেশে উৎপাদিত পণ্য দ্রুত অন্য দেশে ঢুকে পড়ছে। তাই পরিবর্তিত প্রেক্ষাপটে শিল্পায়ন উদ্যোগ ক্রমেই নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছে। আর এই চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে এ ধরনের চুক্তি অত্যন্ত প্রয়োজন।’
 

 

 

 

 

Share.

Comments are closed.