পূর্ব প্রস্তুতি ও উন্নয়ণ কর্মকান্ড সভায় জেলা প্রশাসক পূণ্যস্নানোৎসবের পূর্বেই হবে লাঙ্গলবন্দের ১৯ উন্নয়ণ

0

আলোরপথ টোয়েন্টিফোর ডটকমঃ

সাব্বির আহমেদ সেন্টু, নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

মহাতীর্থ লাঙ্গলবন্দ অষ্টমী পূণ্যস্নানোৎসব সুষ্ঠভাবে উদযাপনের লক্ষে পূর্ব প্রস্তুতি ও উন্নয়ণ কর্মকান্ড তদারকির নিমিত্তে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার(১৩ জানুয়ারী) সকালে জেলা প্রশাসক মো: আনিছুর রহমান মিঞার সভাপতিত্বে তার সভা কক্ষে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলার সওজ’র প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী একে এম সামসুদ্দিন আহম্মেদ, এলজিইডির তত্ত্ববধায়ক প্রকৌশলী মো: এনামুল কবির, ডিপিএইচই এক্সচেঞ্জ মোহাম্মদুর রশিদ মজুমদার, বিআইডব্লিটিএ যুগ্ম পরিচালক নারায়ণগঞ্জ(নদী-বন্দর) এ কে এম আসিফ উদ্দিন, গণপূর্ত বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো: আমিনুল ইসলাম, সোনারগাঁ ইউএনও আবু নাছের ভূঞা, বন্দর ইউএনও মীনারা নাজমীন, মোগরাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মো: আরিফ মাসুদ বাবু, হাজীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার হাফিজুর রহমান, ওয়াসা নারায়ণগঞ্জ মডস’র পক্ষে উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুব্রত কুমার দেব, পিআইও সোনারগাঁ সাইদুল ইসলাম, বন্দর মো: ইব্রাহীম খলিল, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী মো: শাহ আলম, লাঙ্গলবন্দ পূণ্যস্নানোৎসব উদযাপন কমিটির সাধারন সম্পাদক বাসুদেব চক্রবর্তী, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি শংকর সাহা, মহানগর সভাপতি শিপন সরকার প্রমুখ।

পূণ্যস্নানোৎসবের পূর্বেই লাঙ্গলবন্দ তীর্থ স্থানের সকল উন্নয়ণ মূলক কর্মকান্ড সম্পন্ন করার লক্ষে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক আনিছুর রহমান মিঞা।যেসকল উন্নয়ণ মূলক কর্মকান্ড করা হচ্ছে: ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে (কাবিখা) কর্মসূচীর আওতায় বিশেষ প্রকল্পের কাজের (লাঙ্গলবন্দের ¯œানঘাট উন্নয়ন) অগ্রগতি ১৫%। বরাদ্দ ২০০.০০০ (মেঃটন) ব্যয়ের পরিমান ২৫.০০০ মেঃ টন,ডিপটিউবয়েল স্থাপন, ঝুলন্তদ ব্রীজ নির্মান, নদী খনন (ব্রক্ষ্মপুত্র নদ), খাস জমি পুনরুদ্ধার ও অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ কার্যক্রম, রাজঘাট প্রশস্তকরণ, গাড়ী পাকিং স্থান উন্নয়ন,তীর্থ স্থান ও নদীর ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করন, যাত্রী নিবাস উর্দ্ধমুখী সম্প্রসারণ, যাত্রী ছাউনী নির্মাণ, দাশেরগাঁও প্রেমতলা রাস্তা প্রশস্তকরন, রাজঘাট রাস্তার উভয় দিকে ফুটপাত নির্মান,ড্রেস পরিবর্তন কক্ষ নির্মান/মেরামত, কালিগঞ্জ ঘাট নির্মাণ, ওয়াচ টাওয়ার নির্মাণ, বৈদ্যুতিক লাইন ও স্থায়ী খুটি নির্মাণ ভূমি অদিগ্রহণ, ডরমেটরী নির্মাণ, মন্দির সংস্কার ও মেরামত। আগামী এপ্রিল মাসে বন্দর লাঙ্গলবন্দে পূণ্যস্নানোৎসব অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য, গত বছর সরু রাস্তা, ব্রিজ থাকার কারনে ভেঙেগ যাওয়ার গুজবে সেখানে পদদলিত হয়ে ১০ জনের প্রাণহানী ঘটে। যার ফলে এবছর প্রত্যেক রাস্তা ১২ ফুটের পরিবর্তে ৩৬ ফুট এবং দুটি বেইলী ব্রিজ ৩৬ ফুট করে নির্মান করা হচ্ছে।

Share.

Comments are closed.