মহান কল্যাণময়ী বিশ্ব ইজতেমায় যোগদান উপলক্ষে দুলালপুর এলাকাবাসীর উদ্যেগ

0

আলোরপথ টোয়েন্টিফোর ডটকমঃ
নাদিরা বেগম নদী, নিজস্ব প্রতিনিধি

১৫ ই জানুয়ারী রোজ শুক্রবার থেকে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু। রবিবার ১৭ ই জানুয়ারী আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ২০১৬ সালের বিশ্ব ইজতেমা। মহান সৃষ্টিকর্তার কল্যাণ লাভের অাশায় যুগ যুগ ধরে লক্ষ লক্ষ কোটি কোটি মানুষ হৃদয়ে লালন করে অাসছেন মহান বিশ্ব বিধাতার নাম। কল্যান ও দোষমুক্ত হওয়ার অাশায় বিশ্বের সকল দেশ ও রাষ্ট্র থেকে মিলিত হন একত্রিত হন অগনিত মুসলিমগণ।

ইসলাম ধর্ম শান্তির ধর্ম, মুক্তির ধর্ম, ধিতার পাওয়ার ধর্ম। মুসলিমবাসীগণ মহান আল্লাহকে রাজি খুশি করার লক্ষে পবিত্র হজ্ব, চিল্লা ও বিশ্ব ইজতেমায় সমবেত হয়। নরসিংদী জেলার শিবপুর থানার দুলালপুর গ্রামবাসী উদ্যেগ নিয়েছেন বড় বড় বাসগাড়ী চুক্তির মাধ্যমে বিশ্ব ইজতেমায় যোগদান করার জন্য। ২০০ শত গাড়ীর ও বেশি গাড়ী ছেড়ে যাবে শনিবার সন্ধ্যা ৬ টা সময়। বিশ্ব  ইজতেমায় আসা যাওয়া বাবদ খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে মাত্র ১৫০ টাকা।

বিশ্ব ইজতেমায় সমবেত হওয়ার উদ্যেগ নেন শিবপুর থানার সকল এলাকাবাসী। গ্রামবাসীরা বলেন, শুধু এই বছর নয় প্রতি বছরই এমন উদ্যেগ নেওয়া হয়ে থাকে। তারা আরো বলেন, শুধু বিশ্ব ইজতেমা নয় বাংলাদেশের সিলেট বিভাগে অবস্হিত বড় পীর শাহা জালাল ও শাহা পরান রাঃ মাজারে প্রতিবছর যান। গ্রামবাসীরা খুবই অানন্দের সাথে বলেন, এই পরিকল্পনার জন্য গ্রামীণ সল্প আয়ের মানুষজন দূর দূরান্তে অবস্হিত কামেল পীরদের মাজার জিয়ারত করার সৌভাগ্য পাচ্ছেন। এ ছাড়াও বাংলাদেশের বিশাল বিশাল পর্যটন এলাকাগুলোতে গিয়ে থাকেন।

এলাকাবাসী মহান কাজের সাথে সম্পৃক্ত উদ্যেগক্তাদের ধন্যবাদ জানান এবং পাশাপাশি আশা প্রকাশ করেন সব সময়ই জেন মহৎ পরিকল্পনার কাজ ধারাবাহিকভাবে অব্যাত রাখেন। উক্ত ইজতেমার যোগদানরত বাসগাড়ীগুলো ছেড়ে যাবে দুলালপুর বাজার বারেক মিয়ার রেন্টেকার থেকে। উদ্যোগক্তারা বলেন, প্রয়োজনে গাড়ীর সংখ্যা বাড়ানো হবে। নির্বিগ্নে যাতে যাত্রীরা বিশ্ব ইজতেমায় একত্রিত হতে পারেন সেই ব্যাবস্হাসহ খাওয়া দাওয়ার দায়িত্ব ও নিয়েছেন। উদ্যোগক্তারা সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন যাতে মহান উদ্দেশ্যর কাজের মধ্য সফলতা অর্জন করতে পারেন।

Share.

Comments are closed.