Visit Us On TwitterVisit Us On FacebookVisit Us On GooglePlusVisit Us On PinterestVisit Us On YoutubeVisit Us On Linkedin

গঙ্গায় তিস্তার পানি বিপদসীমার উপরে

0

আলোরপথ টোয়েন্টিফোর ডটকমঃ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও অব্যাহত বৃষ্টিতে শুক্রবার ৩০জুন রাত থেকে রংপুরের গঙ্গাচড়ায় তিস্তার নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১০ সে.মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
জানা যায়, তিস্তার পানি হঠাৎ বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার গজঘন্টা ইউনিয়নের রাজবল্লভ, গাউছিয়ারবাজার, রমাকান্ত মর্ণেয়া ইউনিয়নের তালপট্টি, নরসিং, ছোট রূপাই লক্ষ্মিটারী ইউনিয়নের জয়রাম ওঝা, কালীরচর, চর ইচলি, চর শংকরদহ, গঙ্গাচড়া ইউনিয়নের ধামুর চর, কোলকোন্দ ইউনিয়নের চিলাখাল, মটুকপুর, বিনবিনা, নোহালী ইউনিয়নের বাগডহরা, চর নোহালী, মিনার বাজারসহ তিস্তা নদী সংলগ্ন এলাকার ৩ হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।
এদিকে পানিবৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে আলমবিদিতর ইউনিয়নের পাইকান দোলাপাড়া, হাজীপাড়া ও কোলকোন্দ ইউনিয়নের সাউদপাড়া এলাকায় নদী ভাঙন দেখা দিয়েছে। ৩০ জুন শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় তিস্তার পানি ৫২ দশমিক ২৫ মিটারে প্রবাহিত হলেও শনিবার সকাল থেকেই তা ২০ সেন্টিমটার বৃদ্ধি পেয়ে ৫২ দশমিক ৪৫ মিটারে প্রবাহিত হচ্ছে। তিস্তার এই জল বৃদ্ধির ফলে চরাঞ্চল প্লাবিত এবং নিচু অঞ্চলের বসতভিটায় বন্যার পানি প্রবেশ করেছে।
নোহালী ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ টিটুল জানিয়েছেন, তিস্তার পানি বৃদ্ধির ফলে নোহালী ইউনিয়নের প্রায় ৫’শ পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, ফরেস্টের চরের ১৫টি বাড়ি ইতিমধ্যে নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে এবং পরিবারগুলোকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে আনা হয়েছে।
ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে তিস্তা ও সানিয়াজান নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলাসহ জেলার তিস্তা নদীর তীরবর্তী এলাকাগুলোতে তিস্তার পানিতে কয়েকশত পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

Share.

Comments are closed.