Visit Us On TwitterVisit Us On FacebookVisit Us On GooglePlusVisit Us On PinterestVisit Us On YoutubeVisit Us On Linkedin

মির্জাগঞ্জে সহোদরকে হত্যার ঘটনায় আসামীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

0
আলোরপথ টোয়েন্টিফোর ডটকমঃ
মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন,পটুয়াখালী প্রতিনিধি
পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার ঘটকের আন্দুয়া গ্রামের সহোদরকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় আসামীদের বিচার,ফাঁসি ও গ্রেফতারের দাবিতে উপজেলা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে মির্জাগঞ্জ ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষ। বুধবার বৃষ্টি উপেক্ষা করে তারা মিছিল সহকারে উপজেলা পরিষদ চত্বরে জড়ো হয়ে বিচারের দাবী জানান। এদিকে গত মঙ্গলবার মোঃ শহীদ হাওলাদারের দাফনের সময়ে জড়িত খুনিদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে আন্দুয়া গ্রামে মানববন্ধন করে আত্মীয়-স্বজন ও এলাকাবাসী।
ঘটনার গত সাতদিন পর মৃত্যু সাথে যুদ্ধ করে চিকিৎসারত অবস্থায় মোঃ শহিদ হাওলাদার বরিশাল হাসপাতালে মারা যান।উল্লেখ্য,মির্জাগঞ্জ উপজেলার ঘটকের আন্দুয়া গ্রামে মোঃ জাফর হাওলাদারের মহিষে চাচাতো ভাই মোঃ মালেকের আউশের ক্ষেত ক্ষতি করে। পরে জাফর হাওলাদার ক্ষেতের ক্ষতি পুশিয়ে দেয়ার কথা বলেন। এ ঘটনার জের হিসেবে ঈদের দিন সোমবার সন্ধ্যায়(২৬ জুন) মালেক হাওলাদার,ফারুক,আলমগীর ও বশিরসহ আরো লোকজন নিয়ে জাফর হাওলাদারের উপর হামলা চালায়। তাঁর ডাকচিৎকারে লোকজন ছুটে আসলে তাদেরকেও কুপিয়ে জখম করে।
জাফর হাওলাদারকে মির্জাগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষনা করেন। গুরুত্বর আহত তাঁর বড় ভাই শহিদ হাওলাদার,হাবিব,রিফাত ও রিনা বেগমকে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। এর মধ্যে শহিদ হাওলাদার সাতদিন জীবনের সাথে যুদ্ধ করে সোমবার দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বরিশাল হাসপাতালে মারা যান। এ ঘটনায় পরদিন মঙ্গলবার নিহত জাফর হাওলাদারের বোন সোমেনা বেগম বাদি হয়ে ১৫ জনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।
এ মামলায় পুলিশ বরিশাল থেকে আসামী আলমগীরকে গ্রেফতার করে পটুয়াখালী জেল হাজতে প্রেরন করেছেন। এব্যাপারে মির্জাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনির হোসেন বলেন, এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের এবং একজন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Share.

Comments are closed.