19 C
Dhaka
January 18, 2022
আলোর পথ

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করলো উ. কোরিয়া

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া। বুধবার ওই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয় বলে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম কেসিএনএ নিশ্চিত করেছে। এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওই ক্ষেপণাস্ত্রটি ৭শ কিলোমিটার দূরের একটি লক্ষ্যবস্তুতে ‘নিশ্চিতভাবে আঘাত’ করেছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, এনিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালালো উত্তর কোরিয়া। শব্দের চেয়ে পাঁচগুণ দ্রুত ছোটা এই ক্ষেপণাস্ত্রটি ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের চেয়ে দীর্ঘ সময় শত্রুর নজরদারি এড়াতে সক্ষম। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন পিয়ংইয়ংয়ের প্রতিরক্ষা সক্ষমতা জোরালো করার প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পর ওই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হলো। নববর্ষে দেওয়া এক ভাষণে কিম জং উন বলেন, পিয়ংইয়ং প্রতিরক্ষা সক্ষমতা জোরালো করা অব্যাহত রাখবে কেননা কোরীয় উপত্যকার সামরিক পরিবেশ ক্রমেই অস্থিতিশীল হয়ে উঠছে। উত্তর কোরিয়ায় হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার এটা দ্বিতীয় ঘটনা। দূরপাল্লার এবং শব্দের চেয়ে কয়েকগুণ দ্রুতগতিসম্পন্ন ক্ষেপণাস্ত্র। ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের চেয়ে বেশি সময় ধরে শনাক্তকরণ রাডারকে ফাঁকি দিতে পারে এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র।

এই মূহুর্তে যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের মতো অল্প কয়েকটি দেশেরই কেবল হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র আছে। বিশ্বের পরাশক্তিগুলোর মধ্যে এই ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ে প্রতিযোগিতা চলছে।

এতদিন ধরে বিভিন্ন দেশের হাতে যেসব দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ছিল, সেগুলো অনেকটা সেকেলে হয়ে যাচ্ছে এবং তার শূন্যস্থান পূরণ করতেই এই প্রতিযোগিতা। কার আগে কে নতুন প্রজন্মের দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করতে পারে তা নিয়ে জোর প্রতিযোগিতা চলছে।

কয়েকদিন আগে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন পিয়ংইয়ংয়ের প্রতিরক্ষা শক্তিশালী করার ঘোষণার পরই এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার খবর পাওয়া গেল।

নতুন বছরের প্রথম দিনে এক ভাষণে কিম বলেছিলেন যে, কোরীয় উপদ্বীপে ক্রমবর্ধমান অস্থিতিশীল সামরিক পরিবেশ দেখা দিয়েছে। সে কারণে পিয়ংইয়ং নিজের প্রতিরক্ষা সক্ষমতা শক্তিশালী করার প্রক্রিয়া চালিয়ে যাবে।

উত্তর কোরিয়ার সর্বশেষ এই পরীক্ষা সর্বপ্রথম বুধবার ভোরে শনাক্ত করে জাপানের কোস্ট গার্ড। পরে সিউলের প্রতিরক্ষা কর্তৃপক্ষ এই উৎক্ষেপণের কথা নিশ্চিত করে।